মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

পূর্বতন পরিষদ চেয়ারম্যানবৃন্দ

 

পূর্বতন পরিষদ চেয়ারম্যান / প্রশাসকগণ

 

জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান / প্রশাসকগণের মেয়াদ বছর বা তারিখ ভিত্তিক সংরক্ষিত না পাওয়ায় পূর্বতন পরিষদ চেয়ারম্যান / প্রশাসকগণ এর বিষয়ে বর্ণনামূলক তথ্য দেয়া হলো-

 

মি: এ. এইচ রডক তদানীমত্মন জেলা ম্যাজিস্ট্রেট, পদাধিকার বলে এ নব  গঠিত জেলা বোর্ডের  প্রথম চেয়ারম্যানের আসন অলংকৃত করেন। ১৯২০ সালে বোর্ডের প্রথম নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। জনাব খান বাহদুর এমাদ উদ্দীন আহমেদ বি.এল.এম. এল.সি এর প্রথম নির্বাচিত হন। ১৯৩০ সালে তৃতীয় বার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এ নির্বাচনে নাটোরের রাজা বীরেন্দ্রনাথ রায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। ১৯৪০ সালে পঞ্চম নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত নির্বাচনে জনাব মনির উদ্দিন আকন্দ বি.এল.এম. এল.সি. এর চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। তিনি ১৯৫৬ সাল পর্যমত্ম সুদীর্ঘ প্রায় ১৬বৎসর যাবত এক নাগাড়ে চেয়ারম্যানের দায়িত্ব অত্যমত্ম নিষ্ঠা ও দক্ষতার সংগে পালন করেন। তাঁর এ দীর্ঘকাল ব্যাপী জেলা বোর্ডের সেবার স্বীকৃতি স্বরূপ জেলা বোর্ডের এক রাসত্মার নাম ‘‘মনির উদ্দিন আকন্দ রোড’’, অধুনা নির্মিত জেলা বোর্ডের সভাকক্ষের নাম ‘‘মনির উদ্দিন আকন্দ হল’’ এবং একটি নব নির্মিত আধুনিক সুপার মার্কেটের নাম ‘‘ মনিবাজার’’ রাখা হয়েছে।

          জেলা বোর্ডের ষষ্ঠ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় ১৯৫৬ সালে। এ নির্বাচনে জনাব মো: আব্দুস সামাদ চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। অত:পর ১৯৫৮ সালে সামরিক আইন জারী হলে এ বোর্ডের নির্বাচিত কমিটি বাতিল করা হয় এবং জেলা প্রশাসককে এর প্রশাসক হিসেবে জেলা বোর্ডের সার্বিক দায়িত্ব অর্পন করা হয়।

          ১৯৫৯ সালে বুনিয়াদী গণতন্ত্রের আওতায় জেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ও অন্যান্য সদস্য নির্বাচিত হন। এ ব্যবস্থাধীনে ১৯৭১ সাল পর্যমত্ম জেলা প্রশাসক জেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৭২ সালে এ কমিটি বাতিল করা হয় এবং জেলা প্রশাসক কিছুদিন প্রশাসক ও পরবর্তীতে চেয়ারম্যান হিসেবে কার্যক্রম পরিচালনা করেন। পরবর্তীতে স্থানীয় সরকার (জেলা পরিষদ) আইন, ১৯৮৮ এর আওতায় জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও সদস্য মনোনয়ন দেয়া হয়। জেলার উপজেলা চেয়ারম্যান ও সংসদ সদস্যগণ জেলা পরিষদের প্রতিনিধি সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। অত;পর পরিষদ বাতিল ঘোষিত হলে জেলা প্রশাসক ১৩ জুন ১৯৯১ সাল পর্যমত্ম অস্থায়ী চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেন।

          এরপর স্থানীয় সরকার বিভাগের ১১/০১/২০০১ তারিখের প্রজেই-৪/জেপ-৬৭/৯৪/৭৮(১৩৪)নং প্রজ্ঞাপন মোতাবেক জেলা পরিষদে একজন প্রধান নির্বাহি কর্মকর্তা (উপ-সচিব) এর পদ সৃজন করা হলে উক্ত মোতাবেক প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জেলা পরিষদের নির্বাহী কাজ পরিচালনা করছেন। জেলা পরিষদ আইন, ২০০০ অনুযায়ী এ পর্যমত্ম চেয়ারম্যান পদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়নি।তবে বর্তমান সরকার এ আইনের আওতায় জেলা পরিষদ রাজশাহী প্রশাসক হিসেবে অভিজ্ঞ রাজনীতিবিদ মুক্তিযোদ্ধা জনাব মাহবুব জামান ভুলুকে নিয়োগ দেন এবং সে প্রেক্ষিতে তিনি বিগত ১৫.১২.১১ তারিখ জেলা পরিষদে দায়িত্বভার গ্রহন করেন।